বিদেশে হোটেল চাকরি

বিদেশে হোটেল চাকরি পাওয়ার সহজ উপায়

আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছেন যারা ভাল রান্না পারেন, এবং রান্নাবান্নার ওপর নিজের ক্যারিয়ার গড়তে চান তাদের জন্য দেশের পাশা পাশি বিদেশের নামকরা পাঁচ তারকা হোটেল কিংবা রিসোর্টে চাকরির ভালো সুযোগ আছে।ছেলে বা মেয়ে উভয়ের জন্যই বিদেশী হোটেল গুলো ওয়েটার, শেফসহ বিভিন্ন পদে নিয়োগ দিয়ে থাকে।
আজকাল দেশের ছেলে-মেয়েরা হোটেল ম্যানেজমেন্ট, ওয়েটার বা শেফ হিসেবে নিজের ক্যারিয়ার গড়ার স্বপ্ন দেখে। অনেকে হোটেলে চাকরির আশায় বিদেশে পাড়ি জমানোর পরিকল্পনা করে থাকেন। আর সেই সকল মানুষ গুলোর জন্য আমাদের আজকের এই লেখাটি।  মূলত আমরা আজকের আর্টিকেল বিদেশে হোটেল চাকরি সম্পর্কিত বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জেনে নেব।

বিদেশে হোটেল চাকরি পেতে কতটুকু শিক্ষা যোগ্যতা প্রয়োজন ?

আমাদের দেশে সচরাচর  শেফ এর চাকরি পেতে হলে খুব একটা শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রয়োজন হয় না তবে বাইরের দেশগুলোতে এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি একটি রেস্টুরেন্টে শেফের চাকরি নিতে চান তাহলে সেই ক্ষেত্রে  ন্যূনতম কিছু ডিগ্রী এবং সার্টিফিকেট প্রয়োজন পড়বে। এছাড়াও বাইরের দেশগুলোতে বেশ কিছু কোর্স রয়েছে চাইলে একটি নির্দিষ্ট সময়ে কোর্স কমপ্লিট করে ছোটখাটো যেকোনো রেস্টোরেন্ট এ চাকরি পেতে পারেন।

এছাড়া আপনি যত বাঙালি, সুতরাং ভাষায় গান থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ব্যাপার !
এখন মনে করুন আপনি বিদেশে হোটেল চাকরি পেয়ে গেলেন!  কিন্তু সেখানে গিয়ে আপনার মূল দায়িত্ব টা কি হবে?

  • প্রথমত আপনাকে খাবারের মেনু তৈরি করা শিখতে হবে।মেনু ম্যানেজমেন্ট এর ব্যবহার সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা থাকতে হবে। 
  • কোন খাবারের পুষ্টিমান ঠিক কতটুকু সে সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে। 
  • অবশ্যই রান্নাঘর এবং অনেক ক্ষেত্রে হোটেলের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারটি নজরদারিতে রাখতে হবে। সাধারণত বাইরের দেশের হোটেলগুলোতে এটি খুবই সিরিয়াস  একটি ইস্যু। কোন কারণে যদি পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারটি অবিবেচনায় থাকে তাহলে পরবর্তীতে বেশ বড় ধরনের একটি মাশুল গুনতে হতে পারে।
  • রান্নার সকল ধরনের উপকরণ গুলো ঠিকঠাক মতো ব্যবহার করতে হবে।
  •  জুনিয়র শেষ এবং খাবার পরিবেশন কারীদের  যথাযথভাবে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করতে হবে।
  • ব্যাপারটা এমন না যে খাবারের ভেতরে আন্দাজমতো আপনি উপাদানগুলো প্রয়োগ করবেন। অবশ্যই আপনাকে ভেবেচিন্তে এবং হিসাব-নিকাশ করে খাবারে মশলাপাতি  এবং উপাদানসমূহ যোগ করতে হবে। বাইরের রেস্টুরেন্টগুলোতে এটি খুবই ম্যাটার করে।
  • একটা জিনিস সবসময় মনে রাখবেন, আপনি যত ভালোভাবে  নিজের কাজ নিজের মতো করে গুছিয়ে, এবং যথাসম্ভব পরিপাটিভাবে করতে পারবেন আপনার সফল হবার সুযোগ তত বেশি। হয়তো এমনও হতে পারে কিছুদিনের মধ্যে  আপনি অত্র এলাকার সেরা শেফে পরিণত হবেন।
  • আপনার মূল দায়িত্ব হবে আপনার কাস্টমারদের খুশি রাখার। যদি আপনি এই কাজটা ঠিকঠাক মত করতে পারেন তাহলে আপনার সাফল্য নিশ্চিত সে ব্যাপারে  কেউ দ্বিমত প্রকাশ করবে না।

রিসোর্ট এ চাকরি

আপনি জানেন কি? রিসোর্ট কাকে বলে? মূলত রিসোর্টও একধরনের হোটেল । অর্থাৎ সব রিসোর্টিই হোটেল কিন্তু সব হোটেলই রিসোর্ট নয় ।
ইংরেজি resort হল যেখানে সাধারণত রাত যাপনের সুবিধা, ঘুরে বেড়ানোর জায়গা এক কথায় খাওয়া দাওয়া সাথে ঘুরাফেরার জায়গাই হল রিসোর্ট।
এখানে নানা পদে চাকরি করা যায়। দুবাইতে প্রচুর রিসোর্ট আছে যেখানে বেশি বেতনে চাকরি করা যায়।

পাঁচ তারকা হোটেলে চাকরি

dubai hotel job

৫ স্টার বা পাঁচ তারকা হোটেল পৃথিবী সবচেয়ে উচ্চত সুযোগ সুবিধা সম্বলিত থাকার ও খাওয়ার জায়গা। পাঁচ তারকা হোটেলের যা যা বৈশিষ্ট থাকা
বাধ্যতামূলক তা হলো, হোটেল আর্কিটেকচার এবং অভ্যন্তর নকশায় মৌলিকত্ব। এছাড়াও সুইমিং পুল, স্তিম বাথ, বিসনেস সেন্টার, জিম, টেনিস (অপশনাল)।
সেই সাথে ৫ স্টার হোটেলে থাকবে ২৪/৭ ঘন্টা রিসেপশন সার্ভিস এবং রিসেপশন এ যারা কাজ করবে তাদের একাধিক ভাষায় জ্ঞান, প্রশস্ত লবি সার্ভিস সাথে কাফে, ব্রেকফাস্ট সার্ভিস থাকতে হবে।
তো বুঝতেই পারছেন এখানে চাকরি করার মজা কত? সেই সাথে এ ধরনের হোটেলে বেতন অনেক বেশি হয়ে থাকে। পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই এই পেশায় চাকরি করা যায়।
তবে সে জন্য চাই হোটেল ম্যানেজমেন্ট এ ডিগ্রি বা প্রশিক্ষাণ

ওয়েটার চাকরি

সাধারণত ওয়েটারদের চাকরি হয় বড় কোন হোটেল বা রেস্টুরেন্টে। এখন প্রশ্ন হতে পারে ওয়েটার অর্থ কি? এক কথায় ওয়েটার রেস্টুরেন্টে কাস্টমারদের
অভ্যর্থনার পাশাপাশি খাবারের অর্ডার নিয়ে থাকে। খাবার পরিবেশন করে এবং কাস্টমারদের সুবিধা তদারকি করে।
সেই সাথে কাস্টমারদের অসুবিধার দিকে খেয়াল রেখে তার সমাধান করে দেয়।
এ পেশাটি খুবই ভালো দুবাই, সৌদিআরব, কাতারসহ মিডিলইস্ট এর অনেক দেশে বাংলাদেশীরা ওয়েটার হিসেবে ভালো জব করছে।
আবার ওয়েটার পেশায় উপরি ইনকামেরও সুযোগ আছে।

saudi hotel job

হোটেলে চাকরি করে কত টাকা ইনকাম করা যায়?

এখন প্রশ্ন আসতে পারে একজন  শেফ  আপনি মাসে ঠিক কত টাকা ইনকাম করতে পারবেন? এটি নির্ভর করছে আপনি কতটুকু মানসম্পন্ন রেস্টুরেন্টে কাজ করছেন তার ওপরে এবং আপনার কাজের উপরে বটে । তবে সাধারনত  বিদেশের খাবারের রেস্টুরেন্ট গুলিতে সরকারের শেষ হিসেবে যোগদান করলে  30 থেকে 40 হাজার টাকার মত ইনকাম করতে পারবেন  খুব সহজে। যদি  হেড শেফ হলে ভিন্ন কথা ! মাসে তারা চাইলে লাখ খানেক স্যালারিও দিতে পারেন। তবে হ্যা ! আরেকটা বিষয় মনে রাখবেন।যেখানকার শেফ হিসেবে চাকরী করতে চান,সেখানকার ট্রেডিশনাল খাবার -দাবার সম্পর্কে বেশ ভালো একটি ধারণা রাখতে হবে।যাই হোক ! সর্বশেষ প্রশ্নঃকাজ কোথায় খুজবো?

এছাড়া কিছু দেশীয় প্লার্টফর্ম আছে!যেগুলো আপনাকে কাজের সন্ধান এনে দিবে!
আর চাইলে আপনি এমনিতেও বিদেশে নিজের মতো করে একটা রেস্টুরেন্ট স্থাপন করে,সেখানে কাস্টমারদের সেবা পৌছে দিতে পারেন।
আমাদের ভেতরে অনেকে রয়েছেন,যারা হোটেল ম্যানেজমেন্টের উপরে লেখা পড়া করে নিজেদের বিজনেস দাড় করিয়েছে!এখন তারা স্বাবলম্বি।

আরো পড়ুনঃ

আপনি যদি হোটেলে শেফ হিসেবে চাকরি নিতে চান তা হলে আপনাকে ভালো রান্না জানতে হবে। আর সেজন্য নিচের রান্নার রেসিপি গুলি আপনাকে সাহায্য করবে।

আমাদের দেশের অনেক প্রবাসী ভাই-বোন  রয়েছেন  যারা বিদেশে হোটেল  চাকরি করে, অনেকে  শেফ এর কাজ করে , আবার অনেকের নিজস্ব হোটেল রয়েছে! বর্তমানে তারা সকলেই স্বাবলম্বী! সুতরাং আপনি যদি তারা স্বাবলম্বী হতে চান তাহলে দেরি কিসের?
লেগে পড়ুন প্রস্তুতিতে! শুভকামনা আমাদের পক্ষ থেকে…  ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন – আল্লাহ হাফেজ!

লেখাটি আবার পড়তে পড়তে চান? আপনার সোসাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.